শুক্রবার, ৩০-সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:১৩ অপরাহ্ন
  • খেলা
  • »
  • ফের বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন

ফের বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন

shershanews24.com

প্রকাশ : ১১ অক্টোবর, ২০২১ ১২:৩০ অপরাহ্ন

সাপ্তাহিক শীর্ষকাগজের সৌজন্যে: বিসিবি নির্বাচনের ফল কী হবে, সভাপতি কে হবেন এসবই অনুমিত ছিল। শেষ পর্যন্ত হয়েছেও তাই। বিসিবি সভাপতির চেয়ারে টানা চতুর্থবারের মতো বসছেন নাজমুল হাসান। বুধবার(৬ অক্টোবর) নির্বাচনের পরদিন বৃহস্পতিবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের বিসিবি কার্যালয়ে সভাপতি বাছাইয়ের জন্য বৈঠকে বসেন ২৫ পরিচালক। বিসিবি সভাপতি হিসেবে তারা প্রত্যাশিতভাবেই বেছে নিয়েছেন নাজমুল হাসানকে। এবারের নির্বাচনে সর্বোচ্চ ৫৩ ভোট পেয়েছেন নাজমুল হাসান। এই বিভাগে ৫৭ ভোটের মধ্যে ভোট পড়েছে ৫৩টি। 
নতুন মেয়াদে দায়িত্ব নিয়ে বাংলাদেশ দলের র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি করার কথা জানান নাজমুল হাসান। বিশেষ করে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশ দলকে আরও ভালো অবস্থানে দেখতে চান তিনি। সে জন্য অবকাঠামোগত উন্নয়নে নজর দেওয়ার কথা বলেন। বরাবরের মতো এবারও আঞ্চলিক ক্রিকেট সংস্থার জন্য অবকাঠামো উন্নয়ন করার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। এর সঙ্গে বিসিবির সংবিধানেও বেশ কিছু পরিবর্তন আনার ইঙ্গিত দিয়েছেন নাজমুল হাসান। তিনি বলেন, ‘আমাদের এখানে এতগুলো ক্লাব আছে। এখানে যারা এসেছে, বেশির ভাগই ক্লাবের সঙ্গে জড়িত। এত ক্লাব থাকার পরও ক্লাবের ভোট নেই। কিন্তু এমন অনেকের নাম দেখি, যাদের সঙ্গে ক্রিকেটের কোনো সম্পর্কই নেই। আমি গত ৮ বছরে ক্রিকেটের সঙ্গে তাদের কোনো সম্পর্ক দেখিনি। আমি মনে করি এখানে একটা পরিবর্তন আসতে পারে। এটা একটা উদাহরণ দিলাম। এমন আরও অনেক কিছু আছে।’
পরিচালক পদে নির্বাচিত হলেন যারা
গত দুবার অনুষ্ঠিত হয়নি বিসিবি নির্বাচন। তাই এবার নির্বাচন ছিল আমেজপূর্ণ। স্লোগানে স্লোগানে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়াম ছিল মুখরিত। বিসিবি নির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রার্থীদের নিয়ে সমর্থকদের তুমুল উৎসাহ ছিল দিনভর। ৬ অক্টোবর সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে বিকেল ৫টা পর্যন্ত চলা নির্বাচনের সময় যত গড়িয়েছে ততই বেড়েছিল উৎসাহ উদ্দীপনা। তবে এবার নির্বাচনের ফল অনেকটা অনুমিতই ছিল। বিদায়ী বোর্ড প্রধান নাজমুল হাসান সহ তার পরিচালনা পর্ষদে থাকা ২৫ জনের ১৯ জনই পুনরায় নির্বাচিত হয়েছেন। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়, সাবেক ক্রিকেটার, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি এই শ্রেণিতে দুইবারের পরিচালক খালেদ মাহমুদের বিপক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন বিসিবির গেম ডেভেলপমেন্টের সাবেক  ম্যানেজার ও বর্তমানে বিকেএসপির ক্রিকেট উপদেষ্টা নাজমুল আবেদীন। শেষ পর্যন্ত মাহমুদের কাছে ৩৭-৩ ভোটে হেরেছেন নাজমুল আবেদীন।
শ্রেণি-১ এ নির্বাচন হয়েছে রাজশাহী বিভাগে। সেখানে একটি পদের জন্য বিসিবি পরিচালক সাইফুল আলমের বিপক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ। কিন্তু প্রথম নির্বাচনের অভিজ্ঞতা সুখকর হলো না সাবেক অধিনায়কের। খালেদ মাসুদ ৭-২ ব্যবধানে হেরেছেন সাইফুলের কাছে। একই শ্রেণির কিশোরগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার প্রতিনিধি আশফাকুল ইসলাম সরে যাওয়ায় ঢাকা বিভাগের নির্বাচন অনেকটাই এক পেশে হয়ে যায়। মানিকগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার নাঈমুর রহমান ও নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার তানভীর আহমেদ কোনো প্রতিযোগিতা ছাড়াই ১৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়া শ্রেণি-১ থেকে ৭ জন পরিচালক বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁরা হলেন-চট্টগ্রাম বিভাগ থেকে আকরাম খান, আ জ ম নাসির উদ্দিন, সিলেট থেকে শফিউল আলম চৌধুরী, খুলনার শেখ সোহেল, কাজী ইনাম ও বরিশালের আলমগীর খান ও রংপুর থেকে আনোয়ারুল ইসলাম।
শ্রেণি-২ এর ক্লাব কোটা থেকে ১২ জন পরিচালকের পদে নির্বাচন করেছেন ১৫ জন প্রার্থী। সেখান থেকে নির্বাচিত হয়েছেন নাজমুল হাসান, গাজী গোলাম মুর্তজা, নজিব আহমেদ, মাহবুব আনাম, ওবেদ রশীদ নিযাম, ইসমাইল হায়দার, এনায়েত হোসেন, ফাহিম সিনহা, ইফতেখার রহমান, মনজুর কাদের, মনজুর আলম ও সালাউদ্দিন চৌধুরী। আব্দুর রহমান, সাইফুল ইসলাম ও রফিকুল ইসলাম ভোটের লড়াইয়ে হেরে গেছেন। এছাড়াও জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ (এনএসসি) থেকে মনোনীত হয়ে আসছেন জালাল ইউনুস ও আহমেদ সাজ্জাদুল আলম।
হাসিমুখে পরাজয় মেনে নিলেন খালেদ মাসুদ
শ্রেণি-১ এ নির্বাচন হয়েছে রাজশাহী বিভাগে। সেখানে একটি পদের জন্য বিসিবি পরিচালক সাইফুল আলমের বিপক্ষে দাঁড়িয়েছিলেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ। কিন্তু প্রথম নির্বাচনের অভিজ্ঞতা সুখকর হলো না সাবেক অধিনায়কের। খালেদ মাসুদ ৭-২ ব্যবধানে হেরেছেন সাইফুলের কাছে। নির্বাচনে হারলেও ক্রিকেটের উন্নয়নে বোর্ডের বাইরে থেকেও কাজ চালিয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন মাসুদ, ‘কাউন্সিলররা তাকে (সাইফুল) বেশি যোগ্য মনে করেছেন। তাই তাকে ভোট দিয়েছেন। আশা করি তার মাধ্যমে রাজশাহী ও বাংলাদেশের ক্রিকেট উপকৃত হবে। আমি আমার স্বপ্ন নিয়ে এসেছিলাম। কাউন্সিলররা হয়তো তাকে বেশি বিশ্বাস করেছে, এ জন্য ভোট দিয়েছে। ক্রিকেটের সঙ্গে ছিলাম, আরও বড় পরিধিতে কাজ করব-এই চিন্তা করছিলাম। সেই সুযোগটা হয়তো হয় নাই। তবে আমি সব সময় ক্রিকেটের সঙ্গে আছি।’
ফাহিম ও পাইলট যে কারণে হারলেন
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক পদে প্রথিতযশা কোচ নাজমুল আবেদিন ফাহিম ও জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পাইলটের হার নিয়ে মুখ খুলেছেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তিনি বলেন, তারা (ফাহিম ও পাইলট) হঠাৎ করে নির্বাচনে নেমেছে, কোনো হোমওয়ার্ক ছাড়া। নির্বাচনে নামার আগে একটু হোমওয়ার্ক করা দরকার। ওরা কাউন্সিলরদের কাছে যাওয়ার সময়ই বোধহয় সবাই পাননি। প্রস্তুতি নিয়ে নির্বাচনে দাঁড়ালে আরও ভালো হতো। ‘খালেদ মাসুদ পাইলট সম্পর্কে পাপন বলেন, পাইলটের সেকেন্ডারিপ্রপোজালসহ তিনটি ভোট পাওয়ার কথা। ও তো ভোট পেয়েছে দুটি। তাহলে ওর সেকেন্ডারি প্রপোজাল গেল কোথায়?
ক্রিকেটকে আরেক ধাপ এগিয়ে নিতে চান দুর্জয়
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নির্বাচনে ঢাকা বিভাগে ক্যাটাগরি-১ থেকে পরিচালক পদে নির্বাচিত হয়েছেন নাঈমুর রহমান দুর্জয় ও তানভীর আহমেদ টিটু। ফের বিসিবির পরিচালক হয়ে ক্রিকেটকে আরেক ধাপ এগিয়ে নেওয়ার কথা জানালেন সাবেক ক্রিকেটার দুর্জয়। নির্বাচনে জয় লাভ করার পর দুর্জয় বলেন, ‘আমরা গতানুগতিক কাজ তো করছি অনেক বছর ধরে। কিন্তু এখন বাংলাদেশ ক্রিকেটকে আরেক ধাপ এগিয়ে নেওয়ার সময়। আমাদের এগিয়ে যেতে হলে আউট অব দ্য বক্স কাজ করতে হবে। অতিরিক্ত অনেক কিছু করতে হবে। এবার আমরা সেটা করব।’দুর্জয় ও টিটু দুজনের জয় অবশ্য আগে থেকেই নিশ্চিত ছিল। কারণ, ঢাকা বিভাগ থেকে দুর্জয় ও তানভীর আহমেদের সঙ্গে ভোটের লড়াইয়ে দাঁড়ানো দুই প্রার্থী সৈয়দ আশফাকুল ইসলাম টিটু (কিশোরগঞ্জ), খালিদ হোসেন (মাদারীপুর) নির্বাচনের আগ মুহূর্তে সরে দাঁড়িয়েছেন। শুধু নামেমাত্র ব্যালট পেপার ছিল তাদের। তাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ঢাকা বিভাগ থেকে দুই পরিচালক পদে জয়ী হয়েছেন নাইমুর রহমান দুর্জয় ও তানভীর আহমেদ টিটু।
বিসিবিতে জয়ীদের শুভেচ্ছা জানালেন মাশরাফি 
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)-এর নির্বাচনে জয়ী সমস্ত প্রার্থীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচনে জয়ী সব প্রার্থীকে আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা। ইনশাআল্লাহ আপনাদের হাত ধরেই বাংলাদেশের ক্রিকেট আরও এগিয়ে যাবে। শুধু তাই নয়, নির্বাচনে হেরে যাওয়া প্রার্থীদেরও ক্রিকেটে উন্নয়নে ভূমিকা থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেন মাশরাফি। তিনি বলেন, যারা হেরে গিয়েছেন আপনারাও প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে ক্রিকেটের স্বার্থে কাজ করবেন বলেই আশা করছি, আপনাদের সহযোগিতাও বাংলাদেশ ক্রিকেটে প্রয়োজন বলেই মনে করি। শুভকামনা বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।
বিসিবির নির্বাচনে কে কত ভোট পেলেন
বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নির্বাচনে সর্বোচ্চ ৫৩ ভোটপেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন সর্বশেষ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ও আবাহনীর কাউন্সিলর নাজমুল হাসান, গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের গাজী গোলাম মুর্তজা ও আজাদ স্পোর্টিংয়ের এনায়েত হোসেন সিরাজ। 
শ্রেণি-২ এ তাঁরা নির্বাচিত হয়েছেন ঢাকার ক্লাব প্রতিনিধিদের ভোটে। এই শ্রেণিতে ভোটার ছিলেন ৫৭ জন। শ্রেণি-২ থেকে নির্বাচিত বাকি ৯ পরিচালক হলেন শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের নজীব আহমেদ (৫১), মোহামেডানের মাহবুবুল আনাম (৪৭), শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবের ওবেদ রশীদ নিযাম (৫১), কাকরাইল বয়েজ ক্লাবের সালাহ্উদ্দিন চৌধুরী (৪৯), শেখ জামাল ক্রিকেটার্সের ইসমাইল হায়দার মল্লিক (৫২), সূর্য তরুনের ফাহিম সিনহা (৫০), ফেয়ার ফাইটার্স স্পোর্টিং ক্লাবের ইফতেখার রহমান (৫০), ঢাকা এসেটসের মনজুর কাদের (৪৯) ও আসিফ শিফা ক্রিকেট একাডেমির মনজুর আলম (৪৬)।
এই শ্রেণিতে পরাজিত হওয়া মিরপুর বয়েজ ক্রিকেট ক্লাবের মোহাম্মদ আবদুর রহমান পেয়েছেন ৬ ভোট, ওল্ড ডিওএইচএসের সাইফুল ইসলাম ভুঁইয়া ১০ ভোট এবং গাজী টায়ার্স ক্রিকেট একাডেমির রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ১০ ভোট। নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেওয়া মোহামেডানের মাসুদুজ্জামানও ভোট পেয়েছেন ৫টি।
শ্রেণি-১ এ রাজশাহী বিভাগের ৯টি ভোটের মধ্যে জয়ী পাবনার সাইফুল আলম স্বপন চৌধুরী পেয়েছেন ৭ ভোট। তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পেয়েছেন ২ ভোট। এই শ্রেণিতে ঢাকা বিভাগের ভোটে মানিকগঞ্জের নাঈমুর রহমান ও নারায়নগঞ্জের তানভীর আহমেদ দুজনই ১৭টি করে ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।
শ্রেণি-৩ এ ভোট ছিল ৪৩টি, ভোট পড়েছে ৪০টি। জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ জিতেছেন ৩৭ ভোট পেয়ে। তাঁর একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বি বিকেএসপির ক্রিকেট পরামর্শক নাজমুল আবেদীন পেয়েছেন ৩ ভোট।
পরিচালনা পর্ষদের ২৫ সদস্যের মধ্যে ৭ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন আগেই। তারা হলেন চট্টগ্রাম বিভাগের আকরাম খান ও আ জ ম নাছির, খুলনার শেখ সোহেল ও কাজী ইনাম আহমেদ, সিলেটের শফিউল আলম চৌধুরী, বরিশালের আলমগীর খান ও রংপুরের আনোয়ারুল ইসলাম। এ ছাড়া সাবেক দুই পরিচালক জালাল ইউনুস ও আহমেদ সাজ্জাদুল আলম এবার পরিচালক হয়েছেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ মনোনীত হয়ে। নতুন পরিচালনা পর্ষদের ১৯ জনই ছিলেন সর্বশেষ বোর্ডেও। নতুন মুখ হয়ে এসেছেন ইফতেখার রহমান, সালাহউদ্দিন চৌধুরী, ওবেদ রশীদ নিযাম, ফাহিম সিনহা, মনজুর আলম ও তানভীর আহমেদ।

(সাপ্তাহিক শীর্ষকাগজে ১১ অক্টোবর ২০২১ প্রকাশিত)